ঢাকাTuesday , 8 September 2020
  • অন্যান্য

কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলায় মসজিদ মার্কেটের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান


September 8, 2020 6:20 pm । ৬৫ জন
Link Copied!

মারুফ হোসেন : কুমিল্লার  বুড়িচং উপজেলার সদরের মসজিদ মার্কেটে অবৈধ ভাবে দখলে থাকা দোকান-পাট উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়।অভিযান পরিচালনা করেন জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ মারুফ হাসান।তার নেতৃত্বে জেলা পরিষদের জায়গা থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের অভিযান হিসেবে মার্কেটের ৯টি দোকান ভেকু দিয়ে ভেঙ্গে ফেলা হয়েছে।তবে এতে করে স্হানীয় ব্যাবসায়ীদের প্রায় ১৫ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়।

তবে স্হানীয় সূত্রে জানা যায় প্রায় ১৫ বছর পূর্বে তখনকার সময়ের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাকসুদুর রহমান বুড়িচং উপজেলাধীন ১০৬ নং বড় বিজয়পুর মৌজার ১৩নং বিএস খতিয়ানের ৫৮৭৬ দাগের ভূমিতে প্রায় ২৫টি দোকান-পাট নির্মাণ করে মসজিদ মার্কেট নামকরণ করেন। উক্ত মার্কেটের দোকানগুলো স্থানীয় ব্যবসায়ীদের নিকট বিভিন্ন অংকের অগ্রিম ভাড়া নিয়ে বুড়িচং পরিষদ কমপ্লেক্স মসজিদ নির্মান করেন।

দোকান গুলো থেকে প্রাপ্ত ভাড়া দিয়ে মসজিদের কাজে ব্যায় করা হতো। তবে মসজিদ মার্কেটের কিছু অংশ জেলা পরিষদের আওতাভুক্ত থাকায় জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ মারুফ হাসান ৮ সেপ্টেম্বর সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় পুলিশের সহযোগীতায় মার্কেটের পূর্ব পাশের ৯টি দোকান ভেকু দিয়ে ভেঙ্গে ফেলে।এতে করে স্হানীয় কিছু লোকজনের মাঝে হাহাকার দেখা দেয়।

মসজিদ মার্কেটের ব্যবসায়ী আবদুর রশিদ বলেন উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্স মসজিদ কমিটির নিকট থেকে ৩ বছর মেয়াদী চুক্তির মাধ্যমে দোকানগুলো ভাড়া নিয়েছি কিন্তু এখনো আমাদের মেয়াদ শেষ হয়নি। মসজিদ কমিটির পক্ষ থেকে আমাদেরকে পূর্ব নোটিশ প্রদান না করে ৮ সেপ্টেম্বর সকাল সাড়ে ১০টায় জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটের নেতৃত্বে দোকানগুলো ভেকু দিয়ে ভেঙ্গে ফেলে। এতে আমাদের প্রায় ১০-১৫ লক্ষ টাকার ক্ষতি সাধন হয়েছে।

উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্স মসজিদের সেক্রেটারী উপজেলা উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মিজানুর রহমান বলেন,উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইমরুল হাসান মসজিদ কমিটির সভাপতির দায়িত্বে রয়েছেন। আমি অল্প কয়দিন পূর্বে সেক্রেটারীর দায়িত্ব নিয়েছি। তাই এই বিষয়ে কাগজ-পত্র না দেখে কিছু বলতে পারব না।

উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্স মসজিদের সভাপতি ও বুড়িচং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইমরুল হাসান বলেন, এই বিষয়ে আমার কিছুই বলার নেই। আপনারা জেলা পরিষদের সাথে যোগাযোগ করেন।আমাকে এ বিষয়ে কোনো কিছু বলা হয়নি। জেলা পরিষদের দায়িত্বে অভিযান চালানো হয়েছে।