ঢাকা      মঙ্গলবার ২০, এপ্রিল ২০২১ - ৭, বৈশাখ, ১৪২৮ - হিজরী

জানুয়ারিতেই আসছে টিকা, মিলবে বেসরকারি হাসপাতালেও: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

আমার বাংলা ডেস্ক: জানুয়ারির মাঝামাঝি দেশে করোনার ভ্যাকসিন আসবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। তিনি বলেন, বেসরকারি হাসপাতালেও এই ভ্যাকসিন পাওয়া যাবে। শনিবার বিকেলে মানিকগঞ্জে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলোচনায় তিনি এ কথা জানান।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, প্রতি ডোজ টিকার ক্রয়মূল্য ৪ ডলার। সব খরচ মিলিয়ে দাম পড়বে ৫ ডলার। বাংলাদেশি টাকায় হিসাব করলে ৪২৫ টাকার মতো।অন্য যে কোনো ভ্যাকসিনের দাম এর চেয়ে বেশি। চীনারা কোনো কোনো ভ্যাকসিন প্রতি ডোজ ২০ ডলারের বেশি দাম চেয়েছে। ফাইজারের ভ্যাকসিনের দাম পড়বে ৩০ থেকে ৩৮ ডলার।

 


অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার তিন কোটি ডোজ কিনতে ইতোমধ্যে সেরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া এবং বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের সঙ্গে চুক্তি করেছে বাংলাদেশ সরকার।

চুক্তি অনুযায়ী বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস বাংলাদেশে সেরাম ইনস্টিটিউটে উৎপাদিত টিকার ‘এক্সক্লুসিভ ডিস্ট্রিবিউটর’। ভারত থেকে টিকা এনে বাংলাদেশে সরবরাহ করবে দেশের ওষুধ খাতের শীর্ষ কোম্পানিটি। করোনাভাইরাসের এই টিকা সরকার কিনে তা বিনামূল্যে বিতরণ করবে বলে আগেই জানানো হয়েছে।

তিনি বলেন, যুক্তরাজ্য এই টিকার অনুমোদন দিয়েছে, গতকাল ভারত সরকারও অনুমোদন দিয়েছে। অল্প কিছু দিনের মধ্যে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাও এই টিকার অনুমোদন দেবে। আমরা এই টিকা নেয়ার জন্য প্রস্তুত। আমি আগে বলেছিলাম, জানুয়ারির শেষে বা ফেব্রুয়ারির শুরুতে টিকা আসবে। এখন আমি আশাবাদী ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত হয়ত অপেক্ষা করতে হবে না। তার আগেই জানুয়ারি মাসের মাঝামাঝিতেই আমরা টিকা পেয়ে যাব।

তিনি বলেন, প্রায় ছয় কোটি মানুষের জন্য ভ্যাকসিনের অর্ডার নিশ্চিত করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে আরো অর্ডার দেয়া হবে। প্রতি মাসে ৫০ লাখ ডোজ আসবে। এছাড়া চীনের আরো একটি প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশে ভ্যাকসিন ট্রায়ালের জন্য আবেদন করেছে বলেও জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী।


এ সময় স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরো বলেন, করোনায় উন্নত বিশ্বের দেশগুলোর অর্থনীতি হিমশিম খেলেও বাংলাদেশে ততটা হয়নি। বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটে করোনা ব্যবস্থাপনায় বাংলাদেশ ভালো অবস্থানে রয়েছে বলে দাবি করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

তিনি বলেন, বেসরকারি স্বাস্থ্য খাতকে অনুকূলে আনতে সময় লেগেছে। কিছু দুষ্টু লোক কারসাজি করায় সরকার সমালোচিত হয়েছে। বিমানবন্দর বন্ধ নেই তবে দেশে নেমে কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে বলে জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

এবি/এনএস

​​​​​

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আদালতের স্থগিতাদেশ না থাকা সত্ত্বেও নিয়োগ ঝুলে আছে

আদালতের স্থগিতাদেশ না থাকা সত্ত্বেও নিয়োগ ঝুলে আছে

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) নিয়োগবিধিতে বলা আছে যে উপসহকারী প্রকৌশলী পদের…

আরো সংবাদ
























জনপ্রিয় বিষয় সমূহ: