ঢাকা      সোমবার ১৫, অগাস্ট ২০২২ - ৩১, শ্রাবণ, ১৪২৯ - হিজরী

সিংড়ায় স্কুলের খেলার মাঠ দখল করে দোকানপাট বসতভিটা ও সবজি চাষ!

আল আমিন সিংড়া প্রতিনিধিঃনাটোরের সিংড়ায় ডাহিয়া ইউনিয়নে বিলপাকুড়িয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের  খেলার মাঠ দখল করে দোকানপাট, বসতভিটা  ও সবজি চাষ  করছেন স্থানীয়রা।

গ্রামের একটি মাত্র খেলার মাঠ দখল করে স্থানীয়রা দোকানপাট ও বাড়ী ও সবজি চাষ শুরু  করায় সচেতন মহল হতাশা ব্যক্ত করেছেন।  

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, স্কুলের সভাপতির বড় ভাই ইমরান হোসেনের সহ দুটি গোডাউন তৈরী করেছে, ঐ একই গ্রামের আব্দুল জলিল, মিলন, জামিল মাষ্টার সহ মোট আটটি দোকানঘর নির্মান করা হয়েছে। 
মাঠের এক পাশে  ময়দান হোসেন সবজি চাষ করছেন। 
  ঐ গ্রামের ৭ নং ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ  ও স্কুলের সভাপতির মিলন শাহীর  এর সহযোগিতায় তারা এগুলো কর্মকান্ড করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।  


এলাকাবাসী জানায়, আমরা এখানে গ্রামের সকল মানুষ এই জায়গাটি খেলার মাঠ হিসাবেই দিয়েছি। আমাদের বাচ্চাদের একটি মাত্র খেলার মাঠ।  আমাদের শৈশব কৈশরে মিশে আছে এই মাঠটি।আমাদের অনেক স্মৃতি জরিয়ে আছে মাঠে। কিন্তুু স্থানীয়রা জোর করে আজ দোকানপাট ও বাড়ী তৈরী করছে। বাচ্চারা  মনে হয় আর কোন দিন,আমাদের মতো মাঠে আনন্দ উল্লাস করতে পারবেনা।


স্থানীয় এক অভিভাবক বলেন, আমাদের আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক ভায়ের কাছে একটাই অনুরোধ আমাদের খেলার মাঠ আমাদের ফিরিয়ে দিবেন, আমাদের সন্তানদের খেলাধুলা করার পরিবেশ বাঁচান,  তাছাড়া আমাদের সন্তানরা হয়তো মাদকে আসক্ত হবে। 

স্কুলের সভাপতি মিলন শাহী বলেন, যখন ঘরবাড়ি, দোকানপাট তৈরী করেন তখন আমরা স্কুল কমিটি বাধা দেই, আমাদের কোন কথা না শুনে তারা জোর পূর্বক নির্মান  করেছেন। 

স্কুলের প্রধান শিক্ষকা তৃপ্তি রাণী প্রারামানিক বলেন, আমি অল্পদিনে এখানে এসেছি, আমি  এসে দেখি এগুলো তৈরী  হয়েছে,  আমাকে বলে স্কুলের ১০ শতাংশ জায়গাতো আমরা বের করে দিয়েছি। এলাকার ছেলেরা এখানে  বিকালে খেলাধুলা করতো সুন্দর পরিবেশে হঠাৎ করেই দখল হয়ে গেছে।  আজ ছেলেমেয়ের খেলার মাঠ নেই।

শিক্ষা অফিসার আলী আশরাফ বলেন, আমি নতুন দায়িত্ব গ্রহন করছি, জানতাম না,  তবে বিষয়টি সম্পর্কে খোজ খবর নিবো। 

সহকারী কমিশনার ভূমি  রাকিবুল হাসান বলেন, এ বিষয় তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ডাহিয়া ইউনিয়নে চেয়ারম্যান আবুল কালাম বলেন, বিষটি সত্ততা যাচাই করে বলেন, স্থানীয় কিছু ব্যক্তি জোর পূর্বক  ভাবে  মাঠ দখল করে রেখেছে, দখল মুক্ত করার কথা বললে তারা মানছে না।

সিংড়ায় স্কুলের খেলার মাঠ দখল করে দোকানপাট বসতভিটা ও সবজি চাষ!

মোঃ আল আমিন সিংড়া প্রতিনিধিঃ

নাটোরের সিংড়ায় ডাহিয়া ইউনিয়নে বিলপাকুড়িয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের  খেলার মাঠ দখল করে দোকানপাট, বসতভিটা  ও সবজি চাষ  করছেন স্থানীয়রা।

গ্রামের একটি মাত্র খেলার মাঠ দখল করে স্থানীয়রা দোকানপাট ও বাড়ী ও সবজি চাষ শুরু  করায় সচেতন মহল হতাশা ব্যক্ত করেছেন।  

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, স্কুলের সভাপতির বড় ভাই ইমরান হোসেনের সহ দুটি গোডাউন তৈরী করেছে, ঐ একই গ্রামের আব্দুল জলিল, মিলন, জামিল মাষ্টার সহ মোট আটটি দোকানঘর নির্মান করা হয়েছে। 
মাঠের এক পাশে  ময়দান হোসেন সবজি চাষ করছেন। 
  ঐ গ্রামের ৭ নং ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ  ও স্কুলের সভাপতির মিলন শাহীর  এর সহযোগিতায় তারা এগুলো কর্মকান্ড করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।  


এলাকাবাসী জানায়, আমরা এখানে গ্রামের সকল মানুষ এই জায়গাটি খেলার মাঠ হিসাবেই দিয়েছি। আমাদের বাচ্চাদের একটি মাত্র খেলার মাঠ।  আমাদের শৈশব কৈশরে মিশে আছে এই মাঠটি।আমাদের অনেক স্মৃতি জরিয়ে আছে মাঠে। কিন্তুু স্থানীয়রা জোর করে আজ দোকানপাট ও বাড়ী তৈরী করছে। বাচ্চারা  মনে হয় আর কোন দিন,আমাদের মতো মাঠে আনন্দ উল্লাস করতে পারবেনা।


স্থানীয় এক অভিভাবক বলেন, আমাদের আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক ভায়ের কাছে একটাই অনুরোধ আমাদের খেলার মাঠ আমাদের ফিরিয়ে দিবেন, আমাদের সন্তানদের খেলাধুলা করার পরিবেশ বাঁচান,  তাছাড়া আমাদের সন্তানরা হয়তো মাদকে আসক্ত হবে। 

স্কুলের সভাপতি মিলন শাহী বলেন, যখন ঘরবাড়ি, দোকানপাট তৈরী করেন তখন আমরা স্কুল কমিটি বাধা দেই, আমাদের কোন কথা না শুনে তারা জোর পূর্বক নির্মান  করেছেন। 

স্কুলের প্রধান শিক্ষকা তৃপ্তি রাণী প্রারামানিক বলেন, আমি অল্পদিনে এখানে এসেছি, আমি  এসে দেখি এগুলো তৈরী  হয়েছে,  আমাকে বলে স্কুলের ১০ শতাংশ জায়গাতো আমরা বের করে দিয়েছি। এলাকার ছেলেরা এখানে  বিকালে খেলাধুলা করতো সুন্দর পরিবেশে হঠাৎ করেই দখল হয়ে গেছে।  আজ ছেলেমেয়ের খেলার মাঠ নেই।

শিক্ষা অফিসার আলী আশরাফ বলেন, আমি নতুন দায়িত্ব গ্রহন করছি, জানতাম না,  তবে বিষয়টি সম্পর্কে খোজ খবর নিবো। 

সহকারী কমিশনার ভূমি  রাকিবুল হাসান বলেন, এ বিষয় তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ডাহিয়া ইউনিয়নে চেয়ারম্যান আবুল কালাম বলেন, বিষটি সত্ততা যাচাই করে বলেন, স্থানীয় কিছু ব্যক্তি জোর পূর্বক  ভাবে  মাঠ দখল করে রেখেছে, দখল মুক্ত করার কথা বললে তারা মানছে না।

এবি/এনএস

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 

আরো সংবাদ


১৮ মাস পর খুলছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

১৮ মাস পর খুলছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

১১ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ২০:৫৪








বাউয়েটের ৬ষ্ঠ বর্ষপ‚র্তি উদযাপন

বাউয়েটের ৬ষ্ঠ বর্ষপ‚র্তি উদযাপন

১৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২১ ১৮:২৮


Your server does not support the GD function required to process this type of image.

Your server does not support the GD function required to process this type of image.

Your server does not support the GD function required to process this type of image.

Your server does not support the GD function required to process this type of image.

Your server does not support the GD function required to process this type of image.

Your server does not support the GD function required to process this type of image.

বাগাতিপাড়ায় স্কুল শিক্ষক ও ছাত্রীকে নিয়ে এমন কি ঘটেছিল










জনপ্রিয় বিষয় সমূহ: